• ২রা ডিসেম্বর, ২০২১ ইং , ১৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৭শে রবিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী

জিডিপির আকার বেড়ে ৩৫ লাখ কোটি টাকা

ভয়েস অফ বাংলাদেশ
প্রকাশিত নভেম্বর ২৪, ২০২১
জিডিপির আকার বেড়ে ৩৫ লাখ কোটি টাকা

নিউজ ডেস্কঃ 

নতুন ভিত্তি বছরের হিসাবে চলতিমূল্যে দেশের মোট দেশজ উত্পাদনের (জিডিপি) আকার এখন ৪ লাখ ১১ হাজার কোটি লার। টাকার অংকে যার পরিমাণ ৩৪ লাখ ৮৪ হাজার কোটি টাকা। মাথাপিছু আয় দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৫৫৪ ডলারে। যা দেশীয় মুদ্রায় ২ লাখ ১৬ হাজার ৫৪৯ টাকা। ২০০৫-২০০৬ ভিত্তিবছর পরিবর্তন করে ২০১৫-১৬ অর্থবছরকে ভিত্তি ধরে এখন জিডিপির হিসাব করা হচ্ছে। এর ফলে নতুন ভিত্তিবছরে অর্থনীতির আওতা বেড়েছে। মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলনকক্ষে একনেক সভা শেষে এ তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন নিয়ে আগেই ভিত্তি বছর পরিবর্তন করা হয়েছে। একনেক সভায় এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন অবহিত করা হয়েছে। এতে অর্থনীতির আকার বেড়েছে। নতুন নতুন বিভিন্ন খাত যুক্ত হয়েছে। ফলে প্রবৃদ্ধিও বেড়েছে। তিনি বলেন, দেশের সাক্ষরতার হার এখন ৭৫ দশমিক ২ শতাংশ হয়েছে। এছাড়া গড় আয়ু বেড়ে ৭২ দশমিক ৮ বছর হয়েছে। অন্যদিকে দেশে দারিদ্র্যের হার কমে ২০ দশমিক ৫ শতাংশে নেমে এসেছে। করোনার এই সময়ে দারিদ্র্য হার বেড়ে যাওয়ার তথ্য বিভিন্ন গবেষণা সংস্থা দিচ্ছে। আমরা নিজস্ব পদ্ধতিতে দারিদ্র্যের হার হিসাব করছি। চূড়ান্ত হলে এই তথ্য জানানো হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হালনাগাদ তথ্যানুযায়ী ভিত্তিবছর পরিবর্তন করায় কৃষি, শিল্প এবং সেবা খাতে মূল্যসংযোজন বেড়েছে। সাময়িক হিসাবে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয়েছে ৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ যা আগের ভিত্তিবছরে ছিল ৫ দশমিক ৪৩ শতাংশ। নতুন ভিত্তিবছরে ২০১৭-২০১৮ সালে প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৭ দশমিক ৮৬ শতাংশ, ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৮ দশমিক ১৫ শতাংশ, ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে ৩ দশমিক ৫১ শতাংশ। যা আগের ভিত্তিবছরে হয়েছিল যথাক্রমে ৭ দশমিক ৩২ শতাংশ, ৭ দশমিক ৮৮ শতাংশ, ৩ দশমিক ৪৫ শতাংশ। বিগত ছয় বছরে চলতি মূল্যে জিডিপির আকার বেড়েছে বছরে গড়ে ১৭ শতাংশ।

জিডিপির আকার বৃদ্ধির কারণ ব্যাখ্যা করে বিবিএস উল্লেখ করেছে, কৃষি খাতে আগে যে তথ্য হিসাব করা হতো তার সঙ্গে নতুন করে প্রায় ২০টি ফসলের তথ্য যুক্ত হয়েছে। যেমন, ড্রাগন, স্ট্রবেরি, ক্যাপসিক্যাম, লটকন, কচুশাক, শরিফা, মাল্টা ইত্যাদি। গবাদি পশু ও হাঁস মুরগির মাংসের তথ্য যুক্ত হয়েছে, বন খাতে নতুন জরিপের তথ্য অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। সার্বিক ভাবে চলতি মূল্যে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে শিল্প খাতে মূল্য সংযোজনের আকার ৩৬ দশমিক ১ শতাংশ এবং সেবা খাতে মূল্য সংযোজনের আকার ১৪ দশমিক ৩ শতাংশ  বেড়েছে ।