• ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২১ ইং , ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৯শে রবিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন দুতার্তে কন্যা

ভয়েস অফ বাংলাদেশ
প্রকাশিত নভেম্বর ৯, ২০২১
নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন দুতার্তে কন্যা

নিউজ ডেস্কঃ 

ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তের মেয়ে সারা দুতার্তে-ক্যার্পিও দেশটির দাভাও নগরীর মেয়র নির্বাচনের প্রতিযোগিতা থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। আগামী বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য প্রার্থিতা পরিবর্তনের শেষ সময়সীমার মাত্র কয়েক দিন আগে মঙ্গলবার তিনি মেয়র নির্বাচনী দৌড় থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেন বলে খবর দিয়েছে রয়টার্স।

প্রেসিডেন্ট দুর্তাতের উত্তরসূরী হিসেবে তার কন্যা সারাকে নিয়ে দেশটিতে ব্যাপক প্রচার আছে। যদিও কেন মেয়র প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন সে বিষয়ে কিছু বলেননি সারা। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, ‌‌এ বিষয়ে পরবর্তীতে ঘোষণা দেওয়া হবে।

দেশটির পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ৪৩ বছর বয়সী সারার তুমুল জনপ্রিয়তার আভাষ মিলেছে চলতি বছরে চালানো এক জনমত জরিপে। কিন্তু তিনি বলেছেন, এই কাজ তিনি করতে চান না।

আগামী বছরের মে মাসে ফিলিপাইনে প্রেসিডেন্ট থেকে শুরু করে গভর্নর, মেয়র এবং স্থানীয় অন্যান্য নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেই নির্বাচনে প্রার্থিতা পরিবর্তনের শেষ সময় আগামী ১৫ নভেম্বর।

মঙ্গলবার দুতার্তের কন্যা বলেছেন, ‌আজ সকালে আমি দাভাও নগরীর মেয়র পদে আমার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছি। তবে তার ভাই সেবাস্তিয়ান দাভাওয়ে ভাইস-মেয়র হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে আগ্রহী নন বলে বারবার জানিয়েছেন সারা দুতার্তে-ক্যার্পিও। ১৯৮৬ সালে ফিলিপাইনের ক্ষমতাচ্যুত স্বৈরশাসকের বিতর্কিত ছেলে ও প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ফার্দিনান্দ ‌‘বংবং’ মার্কোস জুনিয়রের সঙ্গে সম্প্রতি জোট গঠনের ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন তিনি।

ফিলিপাইনের কয়েক দশকের প্রভাবশালী রাজনৈতিক পরিবারগুলোর একটি মার্কোসের। সমর্থকরা সারাকে মার্কোসের রানিং মেইট হিসেবে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার আহ্বান জানিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে সারা এবং মার্কোসের মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

৭৬ বছর বয়সী ফিলিপাইনের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তে দেশটির সংবিধান অনুযায়ী দ্বিতীয় মেয়াদে নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না এবং এবারের মেয়াদ শেষে রাজনীতি থেকে অবসরে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছেন তিনি। দুতার্তের পরিবারে তার একমাত্র যোগ্য উত্তরসূরী হিসেবে সারাকেই বিবেচনা করা হয়।

সূত্র: রয়টার্স।