• ২৫শে জুন, ২০২১ ইং , ১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৫ই জিলক্বদ, ১৪৪২ হিজরী

দুঃসময়ের বন্ধু মাহমুদউল্লাহ

ভয়েস অফ বাংলাদেশ
প্রকাশিত মে ২৮, ২০২১
দুঃসময়ের বন্ধু মাহমুদউল্লাহ

স্পোর্টস ডেস্কঃ  ক্রিকেট মাঠে বাংলাদেশের ব্যাটিং স্পিন অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দাপট নতুন কিছু নয়। তিনি ব্যাট হাতে ক্রিজে থাকলে প্রতিপক্ষের বোলারদের হৃদস্পন্দন বেড়ে যায়। ক্রিকেট প্রেমীরা অনেকেই মাহমুদউল্লাহকে দুঃসময়ের বন্ধু নামে ডাকেন। ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সদ্য-সমাপ্ত দুই ম্যাচেই দলের বিপদের সময় গর্জে ওঠে তার ব্যাট। প্রথম ম্যাচে ৫৪ ও দ্বিতীয় ম্যাচে ৪১ রান করেন তিনি।

তাই ব্যাটিংয়ে সেই ছন্দ ধরে রাখতে চায় মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু ধারাবাহিক সফলতার জন্য ফিট থাকা বড় ব্যাপার। বয়সের বিচারে টাইগার দলে সবচেয়ে অভিজ্ঞ ক্রিকেটার মাহমুদউল্লাহ। যেহেতু তার বয়সের কাঁটা ৩৫ ছুঁয়েছে, তাই স্বাভাবিকভাবেই চলে আসে ফিটনেস বিষয়ক আলোচনা। কারণ অনেক প্রতিভাবান খেলোয়াড় ফিটনেস হারিয়ে অকালে ঝড়ে পড়েন। তবে সেদিক দিয়ে একেবারে ব্যতিক্রম মাহমুদউল্লাহ। গতকাল হোম অব ক্রিকেট মিরপুরে অনুশীলন শেষে তিনি বলেন, আলহামদুলিল্লাহ ফিটনেস লেভেলে ক্যারিয়ারের সেরা অবস্থানে আছি।

মাহমুদউল্লাহ দীর্ঘদিন ধরেই ভুগছিলেন ফিটনেসহীনতায়। গত কয়েক মাসের সর্বোচ্চ চেষ্টায় ফিটনেসের সেরা পর্যায়ে নিজেকে ফিরিয়েছেন তিনি। কদিন আগে নিউজিল্যান্ড সফরে ভুগেছিলেন ব্যাক পেইনে। তিন ওয়ানডে ও দুটি টি-টোয়েন্টি খেললেও শেষ টি-টোয়েন্টিতে ছিলেন না। তার বদলে নেতৃত্ব দেন অনভিজ্ঞ লিটন দাস। এরপর মুমিনুল বাহিনী শ্রীলঙ্কা যায় দুই টেস্ট খেলতে। এই সফরে যাননি মাহমুদউল্লাহ। তাই হাত গুটিয়ে বসে থেকে সময় নষ্ট করেননি। পুনর্বাসনে চলে যান এবং ফিরে এসেছেন পুরো ফিট হয়ে।

এ বিষয় মাহমুদউল্লাহ বলেন, ফিটনেস নিয়ে গত ২-৩ বছর ধরে কাজ করছি। সেটা রানিং বা জিম হোক। এই জিনিসগুলো আমি সব সময় করি যেন ফিটনেসটা ভালো থাকে। ২-১টা ইনজুরিও হয়েছিল, এগুলোর জন্য অনেক ব্যালেন্সিং ও ম্যান্টেন্যান্স কাজ করা লাগে। চেষ্টা করছি যেন ফিটনেস আরো ভালো থাকে। তাছাড়া বাড়তি অনুশীলন অবশ্যই সাহায্য করে। ম্যাচ প্রস্তুতিও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমরা সবাই কমবেশি এখন এটার গুরুত্ব বুঝি।

এছাড়া, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচেই দলের ক্রান্তিকালে ব্যাট হাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন মাহমুদউল্লাহ। সব কিছু মিলিয়ে বেশ ফুরফুরে মেজাজে দেখা গেছে মাঠে তাকে। ব্যাটিংয়ে অবদান রাখতে পেরে উচ্ছ্বসিত মাহমুদউল্লাহ বলেন, আমি ধারাবাহিক থাকার চেষ্টা করছি। আলহামদুলিল্লাহ ভালো অনুভব করছি। যেটা আমি সব সময় অনুভব করি, তা হলো সঠিক সময়ে দলের জন্য অবদান রাখা। যেহেতু আমি ছয় নম্বরে ব্যাটিং করছি। তো ঠিক সময়ে আমি যদি দলের জন্য অবদান রাখতে পারি সেটা আমার ও দলের জন্য ভালো। তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে আরেকটা সুযোগ পেলে আবারো ভালো করার চেষ্টা করব।