অল্পের জন্য রক্ষা পেল দেড়শ’ লঞ্চযাত্রীর প্রাণ

প্রকাশিত: ১:৪৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১

অল্পের জন্য রক্ষা পেল দেড়শ’ লঞ্চযাত্রীর প্রাণ

নিউজ ডেস্কঃদৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের মাঝ পদ্মায় দ্রুত গতির অয়েল ট্যাংকার ‘এমভি ফ্লাইংবার্ড-২’ নামে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চকে ধাক্কা দিয়েছে। শনিবার দুপুরের এই ঘটনায় হতাহতের কোনো ঘটনা না ঘটলেও অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন লঞ্চের ১৪৫ জন যাত্রী ও ৪-৫ জন কর্মী। এ ছাড়া লঞ্চটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

লঞ্চে থাকা যাত্রীরা জানান, শনিবার দুপুর ১২টার দিকে পাটুরিয়া ঘাট থেকে ১৪৫ জন যাত্রী নিয়ে দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে আসে লঞ্চ এমভি ফ্লাইংবার্ড-২। অপরদিকে সিরাজগঞ্জের বাঘাবাড়ি ঘাট থেকে ছেড়ে আসা মালবোঝাই অয়েল ট্যাংকার সাংহাই-৪ মাঝ পদ্মায় লঞ্চটির মাঝখানে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে লঞ্চের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হওয়াসহ কয়েকজন যাত্রী লঞ্চ থেকে ছিটকে নদীতে পড়ে যায়। এ সময় অয়েল ট্যাংকারের কর্মীরা ও নদীতে মাছ ধরার ট্রলার এবং অন্যান্য লঞ্চ এসে তাদেরকে উদ্ধার করে।

লঞ্চে থাকা যাত্রী মো. হারুন অর রশিদ (২৫) বলেন, দ্রুতগতিতে আসা ওয়েল ট্যাংকার সাংহাই-৪ এর সামনে দিয়ে লঞ্চটি যাচ্ছিল। এটি বের হয়ে যাওয়ার আগেই অয়েল ট্যাংকার লঞ্চের মাঝামাঝিতে ধাক্কা দেয়। এতে তিনিসহ কয়েকজন যাত্রী ছিটকে নদীতে পড়ে যান।

ক্ষতিগ্রস্ত লঞ্চ এমভি ফ্লাইংবার্ড-২ এর মাস্টার শহিদ শিকদার বলেন, পাটুরিয়া থেকে ছেড়ে প্রায় নদীর তিন ভাগ চলে আসি, এ সময় দেখতে পাই- দুইটি অয়েল ট্যাংকার পাল্লা দিয়ে আসছে। আমি লঞ্চ দ্রুত পিছন দিকে ব্যাগার দেই। এ সময় ওয়েল ট্যাংকারটি আমার লঞ্চের মাঝামাঝি এসে জোরে ধাক্কা দেয়। এতে কয়েকজন যাত্রী ভয়ে লঞ্চ থেকে লাফ দিয়ে নদীতে পড়ে যায়। লঞ্চটি ক্ষতিগ্রস্ত হলেও যাত্রীদের কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটে্নি

বিআইডাব্লিউটিএ’র দৌলতদিয়া ঘাটের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আফতাব উদ্দিন বলেন, দ্রুত গতিতে পাল্লা দিয়ে অয়েল ট্যাংকার চলার কারণে দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করছি। বড় ধরনের হতাহতের ঘটনা ঘটার আশঙ্কা থাকলেও অল্পের জন্য লঞ্চের যাত্রীরা রক্ষা পেয়েছেন।