প্রচ্ছদ

৩৩৯ কোটি ব্যয়ে ৫ ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

www.adarshabarta.com

৩৩৯ কোটি ৫৬ লাখ ২৮ হাজার টাকা ব্যয়ে ৫টি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এরমধ্যে ১১৩ কোটি ৫১ লাখ ৪৩ হাজার টাকা ব্যয়ে কাতার থেকে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ও সৌদি আরব থেকে ২৫ হাজার মেট্রিক টন সার আমদানি করা হবে।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) সচিবালয়ে এক ভার্চুয়াল সভায় ক্রয় প্রস্তাবগুলো অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কমিটির সভাপতি অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল চিকিৎসার জন্য বিদেশে থাকায় কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক এতে সভাপতিত্ব করেন।

সভায় কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভা শেষে অনুমোদিত ক্রয় প্রস্তাবের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সচিব ড. আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, সভায় সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের  ‘বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের জাদুঘর ভবন সম্প্রসারণ এবং অন্যান্য ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ডেলিগেটেড ওয়ার্ক হিসেবে গণপূর্ত অধিদপ্তর বাস্তবায়নের জন্য ই-জিপি পদ্ধতিতে দরপত্রের ঠিকাদার নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে ব্যয় হবে ৮৯ কোটি ১৭ লাখ ২৩ হাজার টাকা।

২০২০-২০২১ অর্থবছরে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে কাতার কেমিক্যাল অ্যান্ড পেট্রোকেমিকাল মার্কেটিং অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (মুনতাজাত) থেকে দ্বিতীয় লটে ২৫ হাজার মেট্রিক টন ব্যাগড প্রিল্ড ইউরিয়া সার আমদানির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রতি মেট্রিক টন ২৭২.৭৫ মার্কিন ডলার হিসেবে দাম পড়বে ৬৮ লাখ ১৮ হাজার ৭৫০ মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৫৭ কোটি ৯২ লাখ ৫২ হাজার টাকা।

সভায় বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন আরবান রিসাইলেন্স প্রজেক্ট: রাজউক পার্ট (প্রথম সংশোধন) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় নির্মাণাধীন দুইতলা বেজমেন্টেসহ ১০তলা ভবনে রিসার্চ, ট্রেনিং অ্যান্ড টেস্টিং ল্যাবরেটরি ফেকালটিজ ফর আরবান রিসাইলেন ইউনিট রাজউক কাজের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কাজটি পেয়েছে চীনা স্টেট কনস্ট্রাকশন ইনঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন লিমিটেড। এতে মোট ব্যয় হবে ১১৪ কোটি ৯৯ লাখ ৯৯ হাজার টাকা।

 

ক্রয় কমিটির সভায় চট্টগ্রাম ওয়াসার বাস্তবায়নাধীন ‘চট্টগ্রাম পানি সরবরাহ উন্নয়ন ও স্যানিটেশন প্রকল্প (১ম সংশোধিত)’ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় কালুরঘাট থেকে পতেঙ্গা বুস্টার পাম্প স্টেশন পর্যন্ত সঞ্চালন মেইন এবং আনুষঙ্গিক বিতরণ পাইপলাইন নির্মাণ (প্যাকেজ-ড৫) কাজে নিয়োজিত ঠিকাদারি  প্রতিষ্ঠানের চুক্তির ব্যয় বৃদ্ধির ভেরিয়েশন প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।  প্রকল্পের কাজ বেড়ে যাওয়ায় ব্যয়ও বেড়েছে। যার মাধ্যমে প্রকল্পের মোট ব্যয় বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩৫ কোটি ৩৫ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। কমিটি এই অতিরিক্ত ব্যয়ের অনুমোদন দিয়েছে।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ২০২০-২০২১ অর্থবছরে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে সৌদি বেসিক ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (সাবিক) থেকে ২য় লটে ২৫ হাজার মেট্রিক টন বাল্ক গ্র্যানুলার ইউরিয়া সার আমদানির অনুমোদন দিয়েছে কমিটি।  প্রতি মেট্রিক টন ২৬১ দশমিক ৭৫ মার্কিন ডলার হিসেবে মোট ব্যয় হবে ৬৫ লাখ ৪৩ হাজার ৭৫০ মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৫৫ কোটি ৫৮ লাখ ৯১ হাজার টাকা।

এর আগে কৃষিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চলতি বছরের সেপ্টেম্বর-ডিসেম্বর সময়ে অতিরিক্ত মোগ্যাস (অকটেন ৯৫আরওএন) আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়।